Paid-by-bdcricinfo

নিরাপত্তার কারনে পাকিস্তান সফর স্থগিত নিউজিল্যান্ডের

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন




২০০৩ সালের পর থেকে ১৮ বছর পরে এভার প্রথম পাকিস্তান সফর নিউজিল্যান্ড দলের।  কিন্তু নিরাপত্তা ব্যবস্থা তেমন না হওয়াই পাকিস্তান সফর বাতিল করেছে নিউজিল্যান্ড। পাকিস্তান সফরে তাদের খেলার কথা ছিলো  তিন ম্যাচের ওয়ানডে ও পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। রাওয়ালপিন্ডিতে ওয়ানডে সিরিজ হওয়ার কথা ছিলো ১৭, ১৯ ও ২১ সেপ্টেম্বর। লাহোরে টি-টোয়েন্টি হওয়ার কথা ছিলো ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে ৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। কিন্তু খেলার শুরুতেই এসে এমন ভাবে স্থগিত হয়ে যাবে সিরিজ এমন কোন আবাস আগে থেকে কেউ পায়নি। আজ শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ সময় দুপুর সাড়ে তিনটায় প্রথম ওয়ানডে  ম্যাচটি শুরু হওয়ার কথা ছিল। তবে নির্ধারিত সময়ে দুই দলের ক্রিকেটাররা কেউ মাঠে এসে না পৌঁছালে ম্যাচ নিয়ে অনিশ্চয়তা জাগে। টসের সময় পেরিয়ে গিয়ে ম্যাচ শুরুর সময় গড়ালেও পাকিস্তান ও নিউজিল্যান্ড দলের কোনো  ক্রিকেটারদের মাঠে দেখা যায়নি।


অন্য দিকে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড এক বিবৃতিতে বলেছে,

পাকিস্তানের বিপক্ষে আজ রাওয়ালপিন্ডিতে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডে খেলতে নামার কথা ছিল দলের। সেখান থেকে পাঁচ ম্যাচের সিরিজ ছিল লাহোরে। কিন্তু পাকিস্তানে হুমকির মাত্রা বেড়ে যাওয়ার বিষয়টি নিউজিল্যান্ড সরকার জানানোর পর এবং মাঠে থাকা নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের নিরাপত্তা উপদেষ্টাদের পরামর্শক্রমে সিদ্ধান্ত হয়েছে, নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দল এই সফরে আর খেলবে না। দলকে ফেরত নেয়ার বন্দোবস্ত করা হচ্ছে।’

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড আরেকটি বিবৃতিতে জানিয়েছেন, 


কিছুক্ষণ আগে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড আমাদের জানিয়েছে, তারা কিছু নিরাপত্তা সতর্কতা পেয়েছে এবং একতরফাভাবে সিরিজ স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। পিসিবি এবং পাকিস্তান সরকার সফরকারি সব দলের জন্য প্রশ্নাতীত নিরাপত্তা ব্যবস্থা দিয়ে থাকে।'


নিউজিল্যান্ড কোনো ভাবে আর এই সিরিজ খেলতে চায় না।  টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ এর আগে এটা এক বড় ধরনের ধাক্কা পাকিস্তান ও নিউজিল্যান্ড দুই দলের জন্য। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নিজে নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী সাথে কথা বলেও কোন  সমাধান করতে পারিনি এই সিরিজে।


পাকিস্তান আরও জানায়,

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের জন্যও আমরা সেই ব্যবস্থাই রেখেছি। প্রধানমন্ত্রী ব্যক্তিগতভাবে নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছেন এবং জানিয়েছেন, আমাদের গোয়েন্দা বিভাগ বিশ্বের অন্যতম সেরা। সফরকারি দলের জন্য কোনো ধরনের নিরাপত্তা শঙ্কা নেই এখানে।’

ম্যাচ শুরুর দেড় ঘণ্টা আগে পাকিস্তান সিরিজ বাতিল করল নিউজিল্যান্ড। বিশ্বের ক্রিকেট যেন নিউজিল্যান্ডের সিরিজ বাতিলের কারনে থমকে গেলো। নিউজিল্যান্ড কে হুমকি দিয়েছে বলা যানা যায়। তাইতো পাকিস্তানের ক্রিকেটার সোয়েব আক্তার নিজের টুইটারে টুইট করে বলে, 
নিউজিল্যান্ড যেন পাকিস্তান ক্রিকেটকে হত্যা করলো।
আরোও ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং পেশোয়ার জালমির অধিনায়ক ড্যারেন স্যামি যিনি পাকিস্তানের নিয়মিত দর্শনার্থী, নিউজিল্যান্ডের পাকিস্তান সফর বাতিল করার সিদ্ধান্তে তার শোক ও হতাশা প্রকাশ করেন।

এর আগে নিউজিল্যান্ড ও পাকিস্তানের মধ্যকার ওড়িয়া ও টি টোয়েন্টি সিরিজে দর্শক থাকার কথা ছিল এই দুই মাঠে  রাওয়ালপিন্ডি ও লাহোরে। উভয় স্টেডিয়ামেই মোট ধারণ ক্ষমতার ২৫ শতাংশ দর্শককে গ্যালারিতে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়েছিলো। ফলে ওয়ানডে সিরিজ মাঠে বসে দেখর কাথা ছিলো সাড়ে ৪ হাজার দর্শক এবং টি-টোয়েন্টি সিরিজে জন্য নিধারিত প্রায় সাড়ে ৫ হাজার দর্শক। তবে মাঠে উপস্থিত থাকার জন্য দর্শকদের আবার দেওয়া হয়  শর্তও। তাদের প্রধান শর্ত হলো, দুই ডোজ করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন গ্রহণ করতে হবে। অর্থাৎ দুই ডোজ ভ্যাকসিন যারা নিয়েছে কেবল তারাই মাঠে বসে খেলা উপভোগ করতে পারবেন। কিন্তু সময় সাথে মিল না পাওয়ায় আর কেউ মাঠে বসে খেলা দেখতে পারবে না। 



Related Posts

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন